• NIFT | NIET | NPI | Sonargaon University Admission
  • Bangladesh Malaysia Study Centre Ltd (BMSCL)
  • Trauma Institute Of Medical Assistant Training School
  • Institute of Science and Technology | Diploma in Engineering
  • Online Advertisement | 6
  • Fee Pay | Credit Card Service
উপাচার্য অপসারনের দাবিতে ববিতে তালা ডিআইইউতে আড়ং ডেইরি-ডিআইইউ মার্কেটিং ফেস্ট শুরু ইইউতে “প্রশাসন ও আর্থিক ব্যবস্থাপনায় সুশাসন প্রতিষ্ঠা” কর্মশালা অনুষ্ঠিত ৩ বছরের তুলনায় কারিগরিতে এবার পাশের হার কম ইউনিভার্সিটি সেইন্স ইসলাম এর সাথে কাজ করবে ডিআইইউ নটর ডেম কলেজের মানবিকের চেয়ে বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীরা এগিয়ে এইচএসসির ফলাফলে প্রধানমন্ত্রীর সন্তোষ প্রকাশ পাসের হারে শীর্ষে সিলেট ৭২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কেউ পাস করেনি এবছর সাধারণের থেকে মাদ্রাসায় পাসের হার বেশি For Advertisement Call Us @ 09666 911 528 or 01911 640 084 শিক্ষা সংক্রান্ত বিষয়ে সহযোগিতা নিতে ও এডু আইকন ফোরামে যুক্ত হতে ক্লিক করুন Career Opportunity at Edu Icon: Apply Online চায়নায় স্নাতকোত্তর লেভেল এ সম্পূর্ণ বৃত্তিতে পড়াশুনা করতে যোগাযোগ করুন: ০১৬৮১-৩০০৪০০ | ০১৭১১১০৯ ভর্তি সংক্রান্ত আপডেট খবরাখবর এর নোটিফিকেশন পেতে ক্লিক করুন চার বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে Niet Polytechnic-Dhaka পলিটেকনিকে ভর্তি চলছে All trademarks and logos are property of their respective owners. This site is not associated with any of the businesses listed, unless specifically noted.
  • Good Luck Ball Pen

উচ্চশিক্ষা যখন যুক্তরাষ্ট্রে

Amrita Banik | July 13, 2017
প্রতিকী ছবি

প্রতিকী ছবি

বিদেশে উচ্চশিক্ষার প্রবণতা এ দেশের শিক্ষার্থীদের জন্য নতুন নয়। বিশ্বায়নের যুগে দেশের অনেক শিক্ষার্থীর লক্ষ্য থাকে আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিগ্রি অর্জন করা। আর পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যাই থাকে সর্বাধিক।

এখানকার শিক্ষাব্যবস্থার আন্তর্জাতিক খ্যাতি এবং গ্রহণযোগ্যতাই এর পেছনের অন্যতম কারণ। বিশ্বের প্রথম সারির ১০০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে প্রায় সত্তরটিই যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থিত। কলা, সামাজিক বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা অথবা বিজ্ঞান সব ক্ষেত্রেই এখানকার বিশ্ববিদ্যালয়গুলো নিজ নিজ সুখ্যাতি ধরে রেখেছে।

বাংলাদেশের অনেক শিক্ষার্থীই নিজ নিজ স্বপ্নপূরণের লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চতর শিক্ষা অর্জন করছেন। বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনেকেই মনে করেন যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করার সুযোগ পাওয়া বেশ কঠিন। কিন্ত বর্তমান সময়ে ধারণাটি সঠিক নয়। সঠিক পরিকল্পনাই পারে একজন শিক্ষার্থীর উচ্চশিক্ষার লক্ষ্য পূরণে সহায়তা করতে।

যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ভর্তি প্রক্রিয়া কিছুটা দীর্ঘমেয়াদী। যুক্তরাষ্ট্রে উচ্চশিক্ষা অর্জনে আগ্রহী একজন শিক্ষার্থী স্নাতক অথবা স্নাতকোত্তর যে কোনো পর্যায়েই পড়তে যেতে পারে। তবে একেক পর্যায়ের জন্য প্রস্তুতি কিছুটা ভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে।

স্নাতক পর্যায়ে উচ্চশিক্ষা:
যুক্তরাষ্ট্রে স্নাতক পর্যায়ে পড়াশোনাকে প্রচলিতভাবে আন্ডারগ্রাজুয়েট স্টাডিজ বলা হয়ে থাকে। স্নাতক লেভেলে ভর্তি হতে চাইলে আপনাকে বাংলাদেশে প্রাথমিক এবং মাধ্যমিক পর্যায়ে কমপক্ষে ১২ বছরের পড়াশোনা অথবা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার সনদপত্র লাগবে। পাশাপাশি ইংরেজিতে দক্ষতা প্রমাণের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় ভেদে টোফেল অথবা আইইএলটিএস স্কোর লাগবে। এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশোনার অন্যতম শর্ত স্ট্যান্ডার্ডাইজড টেস্টের অংশ হিসেবে আন্ডারগ্রাজুয়েট পর্যায়ে পড়াশোনা করতে হলে ‘স্যাট’ পরীক্ষায় বিশ্ববিদ্যালয় নির্ধারিত স্কোর পেতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অনুষদ অথবা বিষয়ভেদে বৃত্তির সুযোগ রয়েছে। বৃত্তি অথবা ফান্ড পেতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অথবা বিভাগীয় অধ্যাপকের সঙ্গে ই-মেইলে আবেদনকারী নিজেই যোগাযোগ করতে পারবে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকেই বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কিত তথ্য, বিভাগ পছন্দ করা এবং বিশ্ববিদ্যালয় অফিস ও সংশ্লিষ্ট অধ্যাপকের সঙ্গে যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান শিক্ষার্থীদের গবেষণার ক্ষেত্র সম্পর্কেও ধারণা পেতে পারবেন ওয়েবসাইট থেকে।

স্নাতকোত্তর পর্যায়ে উচ্চশিক্ষা:
বাংলাদেশের বেশির ভাগ শিক্ষার্থীই স্নাতকোত্তর পর্যায়ে পড়াশোনার জন্য বেছে নেয় যুক্তরাষ্ট্রকে। প্রায় চার হাজারের ওপর বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর পর্যায়ে পড়াশোনা করার সুযোগ রয়েছে। এ পর্যায়ে পড়াশোনার জন্য আপনাকে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনাকে আবেদন করতে হবে। এই আবেদন প্রক্রিয়ায় আপনাকে আপনার স্নাতক পর্যায়ে অর্জিত সনদপত্র ছাড়াও আপনার বিভাগীয় শিক্ষকদের কাছ থেকে লেটার অব রিকমেন্ডেশন, স্টেটমেন্ট অব পারপাস জমা দিতে হবে। পাশাপাশি ইংরেজি ভাষায় দক্ষতার প্রমাণস্বরূপ টোফেল অথবা আইইএলটিএস স্কোর এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের চাহিদা অনুযায়ী জিআরই অথবা জিম্যাট স্কোর জমা দিতে হবে। প্রাথমিক বাছাইয়ে আপনার আবেদন মনোনীত হলে আপনার সমস্ত সনদপত্র বিশ্ববিদ্যালয়ে পার্সেল করে পাঠাতে হবে।

শিক্ষা সংক্রান্ত খবরাখবর নিয়মিত পেতে রেজিস্ট্রেশন করুন অথবা Log In করুন।

Account Benefit
যুক্তরাষ্ট্রে উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে নানা রকম বৃত্তি বা ফান্ডের সুবিধা রয়েছে। এগুলো মূলত দুইভাবে পাওয়া যায়। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক প্রদত্ত বৃত্তি, অথবা বিভাগীয় অধ্যাপক কর্তৃক প্রদত্ত ফান্ড। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক প্রদত্ত বৃত্তির জন্য আপনাকে ভর্তির সময়েই একই সঙ্গে বৃত্তির জন্য আবেদন করতে হবে। আপনার সনদপত্র এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন বৃত্তির পরিমাণের ওপর ভিত্তি করে আপনাকে বৃত্তি প্রদান করা হবে। এ ছাড়া বেশির ভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভাগীয় অধ্যাপকদের সঙ্গে গবেষণা সহকারী হিসেবে কাজ করার সুযোগ রয়েছে। এ সুযোগ পেতে চাইলে আপনাকে ভর্তি প্রক্রিয়া চলাকালীনই বিভাগীয় অধ্যাপকের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাঁর সহকারী হিসেবে কাজ করার জন্য অনুমতি চাইতে হবে। গবেষণা সহকারী হিসেবে কাজ করে পাওয়া অর্থ দিয়ে আপনি খুব সহজেই যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশোনাসহ আনুষঙ্গিক খরচ মেটাতে পারবেন।

তাই বিদেশে উচ্চশিক্ষা অর্জন বিষয়ে যাঁরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন অথবা এখনো সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছেন তাঁদের জন্য যুক্তরাষ্ট্র হতে পারে প্রথম পছন্দ।

বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রে উচ্চশিক্ষার বিষয়ে শিক্ষার্থীদের পরামর্শদান সহ অন্যান্য সহযোগিতায় কাজ করছে এক্সা এডুকেশন, ইনপয়েন্ট কনসালটেন্স (আইপিসি) এবং ওভারসিজ অ্যামবিশন সলিউশন লিঃ। যুক্তরাষ্ট্রে উচ্চশিক্ষা নিতে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীরা যেকোনো সমস্যায় যোগাযোগ করতে পারবে এই পরামর্শদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোতে।
যোগাযোগ:
• এক্সা এডুকেশন:- ০১৭৩৩-৪৪২৬৪৪ ;
• ইনপয়েন্ট কনসালটেন্স (আইপিসি):- ০১৭১০-৩৯৩৫৩৭, ০১৯১৬-২৯০০৭৪;
• ওভারসিজ অ্যামবিশন সলিউশন লিঃ:- ০১৭৯১০২২২২২
এছাড়াও যুক্তরাষ্ট্রে উচ্চশিক্ষায় যেতে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীরা অনলাইনে নিজেদের ফ্রি অ্যাসেসমেন্ট করাতে পারবে। ফ্রি অ্যাসেসমেন্টের জন্য এখানে ক্লিক করুন

  • call for advertisement
Submit Your Comments:
  • Career @ Edu Icon
  • call for advertisement